Eastmedinipur

Jun 17 2022, 14:34

পিসি ভাইপোর রাজত্ব যদি চলে বাংলাদেশেতো অষ্টমীতে হয়েছে, ৩১ সালে মহালয়াতে এখানে হবে, লিখে রাখুন আমি শুভেন্দু বলছি

নন্দীগ্রামঃ গতবছর বাংলাদেশে অষ্টমীর দিন দূর্গা প্রতিমা ভাঙ্গচুরের যে ঘটনা ঘটেছিলো সেই ঘটনাকে সামনে রেখে শুক্রবার নন্দীগ্রাম বিধানসভার শ্রী হরি মোড়ে "ভেকুটিয়া বজরং কমিটির" ব্যবস্থাপনায় প্রভু শ্রী রাম চন্দ্রের পুজন অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ নন্দীগ্রামের বিধায়ক তথা রাজ্য বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, আমরা যদি একজোট না হই তাহলে আমাদের এই বাংলাভূমিও বাংলাদেশের মতো পরিস্থিতি তৈরি হবে।

পিসি ভাইপোর ( মমতা, অভিষেক) রাজত্ব যদি চলে বাংলাদেশেতো অষ্টমীতে হয়েছে, ৩১ সালে মহালয়াতে এখানে হবে, লিখে রাখুন আমি শুভেন্দু অধিকারী বলছি। তাই এই পবিত্র দিনে গীতাকে সামনে রেখে আমাদের একজোট হয়ে লড়াই করতে হবে।


Eastmedinipur

Jun 17 2022, 13:25

বিক্রির আশায়, মহিষাদলের রথে কাঁঠাল বিক্রি করতে ভিন রাজ্যের কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা

মহিষাদলঃ রথের সাথে কাঁঠালের সম্পর্ক এখন গভীর। রথের কয়েকদিন আগে থেকে বিক্রির আশায় মহিষাদলের প্রাচীন রথে কাঁঠাল নিয়ে হাজির হয়েছেন ভিন রাজ্যের কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা। গত দু বছর কোভিডের কারনে সেইভাবে কাঁঠাল বিক্রি হয়নি।কোভিড পরিস্থিতি অনেকটাই স্থিতিশীল।মহিষাদলের প্রাচীন রথের মেলাও হচ্ছে এবার। তাই মহিষাদলের রথের মেলায় কাঁঠাল বিক্রির আশায় নদীয়া, মুর্শিদাবাদ,হুগলি সহ অন্যান্য জেলার কাঁঠাল ব্যবসায়ীরা তাদের উৎপাদিত কাঁঠাল নিয়ে হাজির হয়েছে মহিষাদলে।

আগামী ১লা জুলাই রথযাত্রা। সেই রথযাত্রার আগে যাতে ভালো বিক্রি হয় তাই আগে থেকেই ব্যবসায়ীরা কাঁঠাল নিয়ে হাজির হয়েছেন। মহিষাদলের পুরাতন বাজার এলাকায় এবং মহিষাদল রাজবাড়ীর আম্রকুঞ্জে কাঁঠালের পসরা সাজিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এবছর কাঁঠাল ভালো হয়েছে। তবে বিক্রি কতটা হবে সেদিকে তাকিয়ে ব্যবসায়ীরা। এবছর ৫০ টাকা থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত দামের কাঁঠাল পাওয়া যাচ্ছে। পাইকারি ও খুচরা দামেও বিক্রি করা হচ্ছে। শুক্রবার সকাল থেকেই মহিষাদলের দুটি জায়গাতেই ভীড় জমাচ্ছেন ক্রেতারা।


Eastmedinipur

Jun 17 2022, 13:11

স্কুল খোলার দাবিতে অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক কার্যালয়ে ডেপুটেশন অভিভাবকদের

তমলুকঃ কোভিডের কারনে গত দুবছর সেইভাবে স্কুলে পঠনপাঠন হয়নি। তার পর দাবদাহে কারনে ১৫ ই জুন পর্যন্ত প্রাথমিক ও হাই স্কুল গুলি ছুটি ঘোষনা করা হয়। ১৫ ই জুনের পর আবার ২৬ শে জুন পর্যন্ত ১১ দিনের গ্রীষ্মের ছুটি ঘোষনা করা হয়। এইভাবে স্কুল ছুটি বাড়তে থাকলে শিক্ষা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়বে। স্কুলে খুলে স্কুলে পঠনপাঠন যাতে চালু করা হয় তার দাবিতে শুক্রবার তমলুক গ্রামীণ চক্রের অবর বিদ্যালয়ের কার্যলয়ে ডেপুটেশন দেন অভিভাবকরা।

এদিন তমলুক গ্রামীণ চক্রের অবর বিদ্যালয় পরিদর্শক অরুনাভ হাজরা বলেন, তমলুকের ধলহরা জিপির কয়েকটি স্কুলের অভিভাবকা যাতে দ্রুত স্কুল খোলা হয় তার আবেদন জানিয়ে একটি ডেপুটেশন জমা দিয়েছেন। আমি বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেবো। তারা যা নির্দেশ দেবেন সেই মতো ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে শুধু এই জেলায় নয় অন্যান্য জেলাতেও এমনই ডেপুটেশন জমা পড়ছে বলে মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারছি। এখন উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ কি নির্দেশ দেন তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আমাদের।

অবিভাবকেরা চাচ্ছেন স্কুল না খোলায় ছেলে মেয়েদের পড়াশোনার ভীষন সমস্যা হচ্ছে৷ যাতে দ্রুত স্কুল খুলে পঠনপাঠন স্বাভাবিক করা যায় তার আবেদন জানাচ্ছি।


Eastmedinipur

Jun 16 2022, 14:59

জেলায় নতুন ৯৮ টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র, এসএসকেএমের পরিষেবা এবার বাড়ির সামনে, জানালেন মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক বিভাস রায়

তমলুকঃ কোভিড এখনো পুরোপুরি স্বাভাবিক নয়।বাংলার মানুষকে চিকিৎসা পরিষেবা দিতে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় নতুন করে ৯৮ টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্বোধন ঘটছে আগামী সপ্তাহে। এমনটাই জানালেন মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক (তমলুক স্বাস্থ্য জেলা) বিভাস রায়। পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ৪০০টি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র রয়েছে। আগামী তিন বছরে আরও ১৫৫ টি নতুন সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে। যার মধ্যে ৯৮ টি আগামী সপ্তাহে মধ্যে চালু করা হবে।বাকিগুলো ধাপে ধাপে করা হবে।

সেই সাথে জেলার সুস্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলিকে আরও উন্নততর করা হবে। এবার থেকে বাড়ির কাছেই চিকিৎসা পরিষেবা পেয়ে যাবেন সাধারন মানুষ। পাশাপাশি সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলোতে টেলিমেডিসিন পরিষেবাও চালু হচ্ছে। ফলে আর দূরে যেতে হবে না, ঘরের কাছেই ভালো চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যাবে। সুস্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলি চালু হলে কর্মচারিদেরও সুবিধে হবে। একসাথে বহু মানুষ জমায়েত হবে না। ফলে আক্রান্ত হওয়া অনেকটাই কম হবে। দ্রুতগতিতে সুস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কাজ চলছে। আগামী সপ্তাহে সেগুলি চালু হয়ে যাবে।।



Eastmedinipur

Jun 16 2022, 14:57

কোটি কোটি টাকা ব্যয় নির্মিত সতীশ সামন্ত ট্রেড সেন্টার এখন ধ্বংসস্তূপে, শিল্প নেই তাই এই অবস্থা কটাক্ষ বিজেপির

হলদিয়াঃ হলদিয়ায় শিল্প বিষয়ক আলোচনা ও সম্মেলনের জন্যে হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের তৈরি অত্যাধনিক সতীশ সামন্ত ট্রেড সেন্টার রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে একাংশ ধ্বংসস্তুপে পরিনত হয়েছে। হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের সাফাই আমফান ঝড়ের প্রভাবে এটি বিদ্ধস্ত হয়ে গেছে।আর যা নিয়ে কটাক্ষ ছুড়ে দিয়েছে বিজেপি।

হলদিয়াকে আরো আধুনিকতার ছোঁয়ায় আনার লক্ষ্যে শিল্প সম্মেলন থেকে শিল্প বিষয়ক আলোচনার জন্য শুভেন্দু অধিকারী হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান থাকাকালীন ২০১২ সালে প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যায়ে হলদিয়ার রানিচকে সতীশ সামন্ত ট্রেড সেন্টার তৈরি করা হয়। এই ট্রেড সেন্টারে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত আধুনিক পেক্ষাগৃহ, এক্সিবিশন ও মিটিং হল থেকে ফুড কোর্ট ও ক্লাব হাউস রয়েছে।কিন্তু রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে একদশকের মধ্যে ট্রেড সেন্টারের একাংশ প্রায় ধ্বংস্তুপে পরিনত হয়েছে। পেক্ষাগৃহের ইলেকট্রিক সরঞ্জাম থেকে চেয়ার প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। এমনকি ছাদের ফল্স সিলিং খুলে খুলে পড়ছে।।

শুধু পেক্ষাগৃহ নয় ক্লাব হাউস থেকে মিটিং হলের একাংশ ও বেহাল দশায় পরিনত হয়েছে।কেন ট্রেড সেন্টারের এই বেহাল দশা?? এই নিয়ে হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান জ্যোতির্ময় করের সাফাই -ট্রেড সেন্টারটি কর্নাটকের গ্লাস হাউসের আদলে তৈরি তাই আমফান ঝড়ের প্রভাবে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে।পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় পরিকল্পনা করা হয়েছে ধীরে ধীরে মেরামত করার জন্য।

আর এই নিয়ে বিজেপি র কটাক্ষ- হলদিয়ার বিজেপি বিধায়ক তাপসী মন্ডল জানান,বর্তমানে হলদিয়ায় শিল্প তো আসা দূরের কথা বরং যে শিল্প আছে তাও ধিরে ধিরে বন্ধ হচ্ছে।শিল্প যেহেতু আসেনি তাই ট্রেড সেন্টারের প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে গেছে এই সরকারের।আর তাই হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের নজরদারিও নেই।

হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের তরফে কার্যত ধ্বংস হয়ে যাওয়া এই সমস্ত পেক্ষাগৃহ ও হলগুলোকে দ্রুত সারিয়ে তোলার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সেই আশ্বাস কবে বাস্তবায়িত হয় তার দিকেই তাকিয়ে হলদিয়া শিল্পাঞ্চলের বাসিন্দারা ।


Eastmedinipur

Jun 16 2022, 14:54

“জলাভূমি দিবসে " গরীব আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষদের স্বনির্ভর করতে বিশেষ উদ্যোগ এগরা-১ ব্লক মৎস্য বিভাগের

এগরাঃ “জলাভূমি দিবস” উদযাপনের মাধ্যমে এক অভিনব উদ্যোগ নিলো এগরা-১ ব্লক মৎস্য বিভাগ। এগরা-১ নম্বর ব্লকে সাঁওতাল, মাহালী, হো, মুন্ডা সহ বেশ কিছু আদিবাসী জনগোষ্টির বসবাস। এই গরীব আদিবাসী সম্প্রদায়ের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের উদ্দেশ্যে , পয়লা আষাঢ় “জলাভূমি দিবস” উদযাপনের মাধ্যমে বিজ্ঞানভিত্তিক মাছ চাষ, মাছের সহজ কৃত্রিম প্রজনন পদ্ধতি ও সরকারী প্রকল্প সুবিধা বিষয়ক সচেতনতা মূলক বৈঠক অনুষ্টিত হয়।

এলাকার আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষজনদের নিয়ে ১৬ই জুন ২০২২ সকাল ১০টায় এগরা-১ নম্বর ব্লকের অরুয়া গ্রামে স্থিত জগন্নাথ আইচের মাছের কৃত্রিম মাছের প্রজনন কেন্দ্রে অনুষ্টিত এই মৎস্য বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এগরা ১নম্বর ব্লকের বিডিও সুমন ঘোষ, মৎস্য কর্মাধ্যক্ষ অভিমুন্যু দাস ও এগরা-১ এর মৎস্যচাষ সম্প্রসারন আধিকারিক সুমন কুমার সাহু ।

এদিনের সভায় একদিকে যেমন জলাভূমিসমূহের গুরুত্ব এবং এর সঙ্গে জনগণের সম্পর্ক এবং খাদ্য ও পুষ্টির নিরাপত্তা বিধান, আয় বৃদ্ধি, কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং সর্বোপরি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবন-মান উন্নয়নে মাছ চাষের গুরুত্ব বিষয়ে আলোচনা হয়। এছাড়া উপস্থিত আদিবাসীদের পুকুর ডোবার জল পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করে ব্লক মৎস্য দপ্তর।

এগরা-১ ব্লকের মৎস্যচাষ সম্প্রসারন আধিকারিক সুমন কুমার সাহু বলেন, এই সব ডোবা, ছোট পুকুরসমূহে মাছচাষ আদিবাসী জনগোষ্ঠীর টেকসই জীবনমান উন্নয়নে সহায়ক হবে। ডোবা পুকু্রে মাছ চাষ ও মৎস্যজাত বিভিন্ন প্রকল্প বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে আদিবাসীদের জন্য উপযোগী স্বল্পব্যয়ী ও পরিবেশ বান্ধব মৎস্য চাষ প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করেন এগরা-১ ব্লকের মৎস্যচাষ সম্প্রসারন আধিকারিক সুমন কুমার সাহু।

এগরা-১নম্বর ব্লকের বিডিও সুমন ঘোষ এলাকার সমস্ত জলাশয়ের সুষ্টু ব্যবহারে যেমন মাছের উৎপাদন বাড়ানোর প্রয়াসের কথা বলেন তেমনি এলাকার সমস্ত মাছ চাষিদের প্রযুক্তিগত সহায়তা নিতে ব্লক মৎস্যবিভাগে যোগাযোগ করার আহ্বান দেন।

এগরা-১ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অমিয় রাজ বলেন, ইতিমধ্যে আদিবাসী সম্প্রদায়ের মধ্যে পাকার বাড়ি নির্মানের জন্য মৎস্য দপ্তর থেকে অর্থ সাহায্য করা হয়েছে তেমন বাকি আদিবাসীদের মাছ চাষের মাধ্যমে আয় বৃদ্ধির দিকে জোর দেওয়া হচ্ছে।

এদিনের বৈঠকী সভায় পান মুর্মু, সন্তোষ টুডু, সুনিল মান্ডী, সুকুমার টুডু, অলোক বেসরা সহ উপস্থিত আদিবাসীরা অত্যন্ত আনন্দিত , তাঁরা বলেন, জৈব জুস ও জৈব পদ্ধতিতে কম খরচে মাছ চাষের মাধ্যমে উপার্জনের নতুন এক দিকের কথা জানতে পেরে আমরা খুব খুশি। সরকারী নিবন্ধীকৃত হ্যাচারি মালিক জগন্নাথ আইচের মাছের কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রে হাতে কলমে দেখানো হয় কিভাবে সহজে কই, সাইপ্রিনাস, পুটি সহ বেশ কিছু মাছের প্রজনন করেও স্বনির্ভর হওয়া যায়।

এগরা-১ পঞ্চায়েত সমিতির মৎস্য কর্মাধ্যক্ষ অভিমুন্যু দাস বলেন, মৎস্যজীবী ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পে আমরা জেলায় এগিয়ে আগামীতে মাছ চাষকে কেন্দ্র আরো বেশি করে বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হবে। জলাভূমি দিবস উদযাপনের মাধ্যমে এই অভিনব উদ্যোগে এলাকায় মাছ চাষিদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ দেখা দিয়েছে। এগরা কুদি গঙ্গা মুলুক, ভারত জাকাত মাঝি পারগানা মহলের আদিবাসী প্রধান অলোক বেসরা বলেন মৎস্য আধিকারিক সুমন স্যারের উদ্যোগে আদিবাসী সম্প্রদায় উজ্জিবিত হল।।


Eastmedinipur

Jun 15 2022, 16:26

ফেসবুকে আলাপ, ভারতের ছেলে বাংলাদেশের মেয়ের শুভ পরিণয় ঘটলো তমলুকের মা বর্গভীমাকে স্বাক্ষী রেখে

তমলুকঃ ২০১৯ সালে ফেসবুকে আলাপ। পড়াশোনা বিষয়ে কথাবার্তা।কোভিডে লকডাউনের কারনে ফেসবুকেই কথাবার্তা চলতে থাকে। ধিরে ধিরে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। কোভিড পরিস্থি স্বাভাবিক হওয়ায়। উঠে যায় লকডাউন। প্রেমের টানা বাংলাদেশ থেকে ছুটে আসে রুমা। দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তমলুকের প্রাচীন বর্গভীমা মন্দিরে মালাবদল করে ভারতের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তমলুকের ডিমারীহাট এলাকার যুবক মানস মাজির সাথে বাংলাদেশের মানিকগঞ্জ জেলার গাজিপুর এলাকার রুমা মালপ্রভার সাথে বিয়ে হয়।

বাঙালি রীতি মেনে বর কনের সাজে আত্মীয়-পরিজন এর উপস্থিতিতে মহা ধুমধামের সাথে বিবাহ সম্পন্ন হয়। রুমার পরিবারের লোকজনেরা বৈধ কাগজপত্র নিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। মেয়ের আবদার রাখতেই বাংলাদেশ থেকে ছুটে আসেন রুমার পরিবারের সদস্যরা। সরকারি আইন মেনে রুমা এবং মানসের বিবাহ সম্পন্ন হয়। ফেসবুকে আলাপের পর একে অপরকে কাছে পেয়ে বেজায় খুশি তারা। তারা ভাবতে পারেনি দুজনে এক হয়ে সংসার করবে।

বর্গভীমা মন্দির কর্তৃপক্ষ অয়ন কুমার ভট্টাচার্য জানান, প্রায় প্রতিদিন বর্গভীমা মাকে সাক্ষী রেখে বহু বিবাহ হয়ে থাকে। তবে আজকের এই বিয়ে সম্পূর্ণ আলাদা। কারণ দুই দেশ ভারত ও বাংলাদেশের মেলবন্ধন ঘটলো। বয়সের বৈধ কাগজপত্র ও পরিবারের সম্মতিক্রমে মন্দিরে বিয়ের ব্যবস্থা করা হয়। মন্দিরে বিয়ের পর মানসের বাড়িতে ভুরিভোজের আয়োজন করা হয়।

মানস ও রুমার সম্পর্কের মতো দুই দেশের সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হয়ে উঠুক এই কামনা করেন বিবাহের অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা।।


Eastmedinipur

Jun 14 2022, 21:07

থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীদের রক্তের জোগান দিতে,বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে রক্তদান শিবির নন্দীগ্রামে

নন্দীগ্রাম:- থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীদের রক্তের জোগান দিতে রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হল নন্দীগ্রামে।বিশ্ব রক্তদাতা দিবসে নন্দীগ্রাম ১ নম্বর ব্লকের নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া এলাকায় নেক্সাস ডায়াগনস্টিকস সেন্টারের নতুন শাখার উদ্বোধন উপলক্ষ্যে চলো পাল্টাই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও নেক্সাস ডায়াগনস্টিকস সেন্টারের যৌথ উদ্যোগে মঙ্গলবার রক্তদান শিবিরে প্রথমবার রক্ত দিলেন পাঁচ জন রক্তদাতা।

এদিন মোট ১৭ জন রক্তদাতা স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন।রক্ত সংগ্রহ করে নন্দীগ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল।পরিবেশ রক্ষার বার্তা দিতে উদ্যোক্তাদের তরফ থেকে প্রত্যেক রক্তদাতার হাতে ফলের চারাগাছ তুলে দেওয়া হয়।সংগঠনের সদস্য সৈকত শাসমল বলেন "গ্ৰীষ্মকালীন সময়ে জেলার বিভিন্ন ব্ল্যাড ব্যাঙ্কগুলিতে যেভাবে রক্তের সঙ্কট দেখা দিয়েছে,বিভিন্ন ক্লাব,প্রতিষ্ঠান কে রক্তদান শিবির আয়োজনের জন্য এগিয়ে আসতে হবে।"


Eastmedinipur

Jun 14 2022, 17:56

বিজেপি কে সুবিধে পাইয়ে দিতেই দিল্লী যাত্রা মমতার কটাক্ষ সুজনের।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার একাধিক রাজনৈতিক জনসংযোগ মূলক কর্মসূচিতে যোগ দিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী।

এই কর্মসূচী যোগদিয়ে রাজ্যে সরকার কে একাধিক বিষয়ে সরকার ও শাসক এবং প্রধান বিরোধী দল বিজেপি কে কটাক্ষ করেন। উপস্থিত ছিলেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক নিরঞ্জন সিহি সহ একাধিক জেলা কমিটির সদস্য।

এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের টেট নিয়ে তিনি বলেন, এখনো পর্যন্ত টেট দুর্নীতি যে জায়গায় যাচ্ছে তাতে ব্যাপন কেলেঙ্কারির থেকেও বড় হয়ে উঠছে এই বিষয়টি। রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে বিশেষ সুবিধে করতেই ওনার (মমতার)দিল্লি যাত্রা। দেড় বছরে কেন্দ্রের ১০ লক্ষ চাকরির প্রতিশ্রুতি : পিএমও-র ট্যুইটে জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের সব দফতর এবং মন্ত্রকের মানব সম্পদের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার পর আগামী আগামী দেড় বছরের মধ্যে দ্রুততার সঙ্গে দশ লক্ষ নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

যা শুনে আমি বলেছিলাম, প্রধানমন্ত্রী কথা শুনতে খারাপ লাগবে না। শুনে লোকে বিশ্বাস করতে চাইবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু কেউ বিশ্বাস করতে পারছে না। উনি তো অসত্য বলছেন। নির্বাচনের জন্য উনি বলেছিলেন বছরে ২ কোটি চাকরি। আট বছরে ১৬ কোটি বেকারের চাকরি দূরে থাক। কর্মরত মানুষ কর্মচ্যুত হয়েছে।আগের বারে সিবিআই আসবে শুনে অভিষেকের বাড়িতে দেখা করতে চলে গিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জি। এবার কি করবেন জানিনা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কি দেখা করে কথা বলে আসবেন।


Eastmedinipur

Jun 14 2022, 17:34

মৎস্যজীবীরা মাছ ধরতে পাড়ি দিচ্ছে, বৈধ কাগজ, লাইফ জ্যাকেট এবং পর্যাপ্ত ওষুধ মজুদ রাখার নির্দেশ প্রশাসনের

দিঘাঃঃনদী ও সমুদ্রে মাছ ধরা বন্ধের সময়সীমা (ব্যান পিরিয়ড) শেষ হচ্ছে আজ ১৪ জুন। ১৫ জুন থেকে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মৎস্যজীবীদের প্রায় দুই হাজারের বেশি ট্রলার সমুদ্রে মাছ ধরতে রওনা দেবে। দীঘা, শঙ্করপুর, পেটুয়াঘাট, নন্দীগ্রাম, শৌলা - সর্বত্রই মৎস্যজীবী পরিবাবগুলিতে সাজ সাজ রব। কড়া নজর রাখা হচ্ছে - করোনা বিধি ও মাছ শিকার সংক্রান্ত বীমা করার দিকে।

মৌসুমের শুরুতেই হালকা বৃষ্টি ও মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়ার

কারণে প্রচুর ইলিশ উঠতে পারে বলে আশা মৎস্যজীবী সংগঠনগুলির।

 

সমুদ্রে যাওয়ার আগে ট্রলারগুলোকে বৈধ রেজিস্ট্রেশন এর কাগজ,  মৎস্যজীবীদের  পরিচয় পত্রের কাগজ সঙ্গে নিতে বলা হয়েছে।

নিরাপত্তার দিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পেটুয়াঘাট মৎস্য বন্দরের বিশেষ আধিকারিক অরিন্দম সেনগুপ্ত। দুর্ঘটনা এড়াতে গভীর সমুদ্রে যাওয়া প্রতিটি ট্রলারে বিপদ সংকেত প্রেরণ যন্ত্র তথা ডিস্ট্রেস এলার্মিং ট্র্যান্সমিটার (DAT) এবং অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র রাখা বাধ্যতামূলক করা  হয়েছে। ট্রলারে লাইফ জ্যাকেট এবং পর্যাপ্ত ওষুধ মজুদ রাখতে বলা হয়েছে।